মেজবাহর সেই রঙিন দিনগুলো

অথর
নিজস্ব প্রতিবেদক   বাংলাদেশ
প্রকাশিত :৮ এপ্রিল ২০২০, ৫:০৮ পূর্বাহ্ণ | নিউজটি পড়া হয়েছে : 93 বার
মেজবাহর সেই রঙিন দিনগুলো

তিন বছর আগেও পুরুষদের ১০০ মিটার স্প্রিন্টে মেজবাহ আহমেদ ছিলেন শেষ কথা। শিরিন আক্তার ও মেজবাহ নৌবাহিনীর এই জুটি ছিল সেরা। ১০০ মিটার স্প্রিন্ট থেকে ছিটকে পড়েছেন বাগেরহাটের মেজবাহ। ছুটির দিনগুলোতে নিজেকে ফিট রাখার জন্য কসরত করছেন নৌবাহিনীর কোয়ার্টারে থেকে-

প্রশ্ন : কেমন আছেন?

মেজবাহ আহমেদ : ভালো আছি। নৌবাহিনীর কোয়ার্টারে থাকছি।

প্রশ্ন : সারা দেশে চলছে ছুটি। বাড়ি যাননি?

মেজবাহ : না, আমাদের ছুটি ছিল না। কোয়ার্টারেই থাকতে হচ্ছে।

প্রশ্ন : বাড়ির সঙ্গে যোগাযোগ হয়?

মেজবাহ : বাড়িতে সবাই আছেন। তাদের সঙ্গে প্রতিদিন যোগাযোগ হচ্ছে। সবার খোঁজখবর নিচ্ছি। আমার খোঁজ নিচ্ছেন আত্মীয়রা।

প্রশ্ন : কি করছেন ছুটিতে?

মেজবাহ : এখন তো পুরোদমে অনুশীলন করার অবস্থা নেই। তাই ওয়েট ট্রেনিং করছি। শরীরের ফিটনেস ধরে রাখার চেষ্টা করছি।

প্রশ্ন : এক সময় দ্রুততম মানব ও মানবী বলতে মেজবাহ ও শিরিনকেই বোঝাতো। এখন শিরিনের সঙ্গে আপনার নামটা আর আসছে না?

মেজবাহ : ঠিকই বলেছেন। দীর্ঘ সময় এক সঙ্গে আমরা দ্রুততম মানব-মানবী ছিলাম। সেসব এখন অতীত।

প্রশ্ন : মনে পড়ে সেসব দিনের কথা?

মেজবাহ : পড়বে না কেন। ২০১৩ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত জাতীয় মিট ও সামার মিট মিলিয়ে সাতবার দ্রুততম মানবের খেতাব জিতেছি। সেই দিনগুলো খুবই রঙিন ছিল।

প্রশ্ন : কি এমন হল যে পেরে

উঠছেন না?

মেজবাহ : গেল বছর জাতীয় চ্যাম্পিয়নশিপ ও সামার মিট এবং এ বছর জানুয়ারিতে চট্টগ্রামে জাতীয় মিট- টানা তিনটি আসরে আমি ব্যর্থ হয়েছি। আমি না পারলে কি হবে, নতুনরাতো উঠে আসছে।

প্রশ্ন : আগামীতে কি আর দ্রুততম মানব মেজবাহকে দেখা যাবে না?

মেজবাহ : হয়তো না। কারণ আমি হয়তো এই ইভেন্টে আর দৌড়াব না।

প্রশ্ন : কোন ইভেন্টে অংশ নেবেন?

মেজবাহ : ভাবছি ৪x১০০ মিটার রিলেতে দৌড়াব। আর ট্রিপল জাম্পে লড়ব। এ দুটি ইভেন্টেই এখন মনোযোগ দেব।

প্রশ্ন : করোনাভাইরাসের এই বিশেষ ছুটিতে আপনার পরামর্শ কী?

মেজবাহ : সবাই ঘরে থাকুন। ভালো থাকুন। বাইরে বের হবেন না। এই দেশকে আমাদেরই ভালো রাখতে হবে। সবাই ভালো থাকুন।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শেয়ার করে  সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 × 2 =