মঠবাড়িয়ায় খালে বাঁধ : কৃষি জমিতে জলাবদ্ধতা

অথর
নিজস্ব প্রতিবেদক   বাংলাদেশ
প্রকাশিত :১৩ জানুয়ারি ২০১৯, ৫:৪১ পূর্বাহ্ণ | নিউজটি পড়া হয়েছে : 22 বার
মঠবাড়িয়ায় খালে বাঁধ : কৃষি জমিতে জলাবদ্ধতা মঠবাড়িয়ায় খালে বাঁধ : কৃষি জমিতে জলাবদ্ধতা

মঠবাড়িয়ার মিরুখালী-সাফা সংযোগ লাইনের খালের চারটি স্থানে স্থানীয় কতিপয় প্রভাবশালী বাঁধ দিয়ে পানি চলাচল আটকে দিয়েছে। ফলে খাল তীরবর্তী গ্রামের কৃষি জমিতে জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে। তীর ভাঙনের অজুহাত দেখিয়ে পাঁচ কিলোমিটার খালের চারটি স্থানে বাঁধ দেয়ায় খালের পানি চলাচল আটকে যায়।

সরেজমিন দেখা গেছে, উপজেলার মিরুখালী ইউনিয়ন বন্দর হতে ধানীসাফা ইউনিয়নের ভাল্ডারপোল এলাকার পাঁচ কিলোমিটার খালটি একটি নৌরুট। এ খালের সঙ্গে দুই ইউনিয়নের অন্তত ৬টি গ্রামের মানুষ নির্ভরশীল। গ্রামের কৃষিতে এ খাল সেচ সংকট মোকাবেলা করে। এমন একটি জনগুরুত্বপূর্ণ খালের চারটি স্থানে কতিপয় প্রভাবশালী কৃষি জমিতে লবণ পানির আগ্রাসন আর ভাঙনের অজুহাত দেখিয়ে বাঁধ দেয়। ফলে খালটির পানির প্রবাহ আটকে যায়। এতে খালে নৌ-চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। সে সঙ্গে বাঁধ দেয়া খালে কিছু প্রভাবশালী মাছ চাষ করে আসছে। গত ১০ বছর ধরে প্রবাহমান খালটি এমন দুরাবস্থার কবলে পড়ে। এতে এলাকার দেড় সহস্রাধিক পরিবার ও সাড়ে ৩০০ একর কৃষি জমি জলাবদ্ধতার কবলে পড়ে। পাঁচ কিলোমিটার খালের সাফা অংশের ভাল্ডারপোল এলাকা, সাধুবাড়ি সম্মুখ ও মোসলেমের ইটভাটার সম্মুখ খালের আড়াআড়ি মাটি ভরাট করে বাঁধ দেয়া হয় কয়েক বছর আগে। পরে বাদুরাবাজার সংলগ্ন ওই খালে স্থানীয় কতিপয় প্রভাবশালী আরও একটি বাঁধ দেন। এ নিয়ে স্থানীয়ভাবে বিবদমান দুই পক্ষে চরম বিরোধ দেখা দিলে বাঁধটি পরে কেটে ফেলা হয়।

এ বিষয়ে পিরোজপুর জেলা পরিষদ সদস্য ইলিয়াস উদ্দিন হেলাল মুন্সী বলেন, বাঁধ না দিলে এলাকায় ভাঙন ও কৃষি জমির লবণাক্ততা রোধ করা সম্ভব হচ্ছে না। তবে বাঁধের স্থানে কালভার্ট নির্মাণ করে পানির প্রবাহ স্বাভাবিক রাখার বিষয়ে উদ্যোগ নেয়া হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শেয়ার করে  সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

11 + 14 =


আরও পড়ুন