নির্দেশনা না মেনে এডিপিতে অন্তর্ভুক্তির প্রস্তাব, লাখ টাকা করে বরাদ্দ পাচ্ছে ৩৭ প্রকল্প

অথর
নিজস্ব প্রতিবেদক   বাংলাদেশ
প্রকাশিত :৯ মে ২০১৯, ৩:৩৯ অপরাহ্ণ | নিউজটি পড়া হয়েছে : 10 বার
নির্দেশনা না মেনে এডিপিতে অন্তর্ভুক্তির প্রস্তাব, লাখ টাকা করে বরাদ্দ পাচ্ছে ৩৭ প্রকল্প নির্দেশনা না মেনে এডিপিতে অন্তর্ভুক্তির প্রস্তাব, লাখ টাকা করে বরাদ্দ পাচ্ছে ৩৭ প্রকল্প

এডিপি তৈরিতে নির্দেশনা মানছে না মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলো। আগামী অর্থবছরের (২০১৯-২০) নতুন এডিপিতে ৫৮টি প্রকল্প অন্তর্ভুক্তির প্রস্তাব করা হয়েছে। কিন্তু এসব প্রকল্প চলতি অর্থবছরের মধ্যেই সমাপ্ত করার কথা ছিল। সে জন্য প্রয়োজনীয় বরাদ্দসহ বারবার তাগাদাও দেয়া হয়েছিল। কিন্তু তাতেও কাজ হয়নি।

এ অবস্থাকে অর্থ বরাদ্দের ক্ষেত্রে সমস্যা এবং আর্থিক ব্যবস্থাপনায় বিশৃঙ্খলা বলে মনে করছে পরিকল্পনা কমিশন।

এ পরিপ্রেক্ষিতে ১২টি প্রকল্পকে সমাপ্ত ঘোষণা করে এডিপি থেকে বাদ দেয়ার সুপারিশ করা হয়েছে। এছাড়া ৩৭টি প্রকল্পে এক লাখ টাকা করে বরাদ্দ দিয়ে চলমান রাখা হবে। ইতিমধ্যেই বাকি ৯টি প্রকল্পের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে। বুধবার অনুষ্ঠিত পরিকল্পনা কমিশনের বর্ধিত সভায় এ সুপারিশ দিয়ে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সামনে উপস্থাপনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। পরিকল্পনা কমিশন সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান বুধবার যুগান্তরকে বলেন, এগুলো কেন শেষ হয়নি তার কারণ খুঁজে বের করা হবে। তবে আমরা চেষ্টা করছি যাতে সময়মতো প্রকল্পের বাস্তবায়ন শেষ করা যায়। প্রকল্প পরিচালকদের স্বাধীনতা দেয়া হয়েছে। তারা যাতে মাঠে থাকেন সেজন্য নির্দেশনা রয়েছে। সে মোতাবেক এখন অনেক প্রকল্প পরিচালকই মাঠে থাকছেন। তাছাড়া প্রকল্পের গতি আনতে তাগাদা দিয়ে পত্র পাঠাচ্ছি।

জানতে চাইলে পরিকল্পনা সচিব বলেন, কেন এসব প্রকল্প শেষ হয়নি সে বিষয়ে আমরা এনইসি বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর সামনে উপস্থাপন করব। সেই সঙ্গে ওই ১২টি প্রকল্প আলাদাভাবে উপস্থাপন করা হবে। স্বাভাবিকভাবেই তিনিই সিদ্ধান্ত দেবেন এসব বাদ দেয়া হবে নাকি যুক্ত করা হবে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, প্রকল্প সময়মতো শেষ না হলে প্রকল্প পরিচালকদের জবাবদিহিতার আওতায় নিয়ে আসা উচিত।

পরিকল্পনা কমিশন সূত্র জানায়, এডিপি প্রণয়নের নির্দেশিকার অনুচ্ছেদ ৩ দশমিক ৪-এ বলা হয়েছে চলতি ২০১৮-১৯ অর্থবছরের সংশোধিত এডিপিতে তালিকাভুক্ত ২০১৯ সালের জুনে সমাপ্য কোনো প্রকল্প ২০১৯-২০ অর্থবছরের এডিপিতে অন্তর্ভুক্তির প্রস্তাব করা যাবে না। কিন্তু তারপরও ওই তালিকায় থাকা ৫৮টি প্রকল্প যুক্ত করার প্রস্তাব করা হয়েছে। বর্ধিত সভার কার্যপত্রে বলা হয়েছে, ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর ২০১৮-১৯ অর্থবছরের এডিপিতে অন্তর্ভুক্ত সমাপ্য প্রকল্প পর্যালোচনা ও তালিকা হালনাগাদ করার জন্য পরিকল্পনা কমিশনের কার্যক্রম বিভাগের উদ্যোগে আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ পরিপ্রেক্ষিতে চলতি অর্থবছরের সংশোধিত এডিপিতে (আরএডিপি) বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগের আগামী জুন মাসে সমাপ্ত হবে এরকম ৩৪৮টি প্রকল্পের তালিকা হালনাগাদ করে চূড়ান্ত করা হয়। সমাপ্য প্রকল্পগুলো যথাসময়ে যাতে শেষ হয় আরএডিপিতে প্রয়োজনীয় বরাদ্দ নিশ্চিত করা হয়েছিল। এছাড়া প্রকল্পগুলোর কার্যক্রম যথাসময়ে সমাপ্ত করতে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও বিভাগকে একাধিকবার নির্দেশনা দেয়া হয়। কেন না, এসব প্রকল্প নির্ধারিত সময়ে শেষ না হলে বাজেট প্রক্রিয়ায় অর্থ বরাদ্দের ক্ষেত্রে সমস্যা সৃষ্টি হয় ও আর্থিক ব্যবস্থাপনায় বিশৃঙ্খলা দেখা দেয়। সেই সঙ্গে প্রকল্পের সুফল প্রাপ্তিতে বিলম্ব ঘটে। এসব বিবেচনায় ২ এপ্রিল সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় বা সংস্থাকে ওই প্রকল্পগুলো যথাসময়ে সমাপ্ত করতে অনুরোধ জানিয়ে পত্র দেয়া হয়।

আরও বলা হয়েছে, তারপরও এসব প্রকল্পের মধ্যে ৫৮টি প্রকল্প আগামী অর্থবছরের এডিপিতে অন্তর্ভুক্তির প্রস্তাব করা হয়েছে। এই ৫৮টির মধ্যে ৩৭টি প্রকল্পের মেয়াদ বৃদ্ধি বা সংশোধনের বিষয়টি সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়, বিভাগ, পরিকল্পনা কমিশন বা বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগে (আইএমইডি) প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানানো হয়েছে। তাই এগুলোকে ২০১৯-২০ অর্থবছরের এডিপিতে ১ লাখ টাকা করে বরাদ্দ দিয়ে অন্তর্ভুক্ত করে চলমান রাখার সুপারিশ করা হয়েছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শেয়ার করে  সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two × 1 =